১৯শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

EN

সরাইলে কাল বৈশাখী ঝড়-শিলাবৃষ্টিতে বাড়িঘর লন্ডভন্ড, ফসলের ব্যপক ক্ষতি

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ৪:২৭ অপরাহ্ণ , ১১ এপ্রিল ২০২২, সোমবার , পোষ্ট করা হয়েছে 2 years আগে

সরাইলে কাল বৈশাখী ঝড়-শিলাবৃষ্টিতে বাড়িঘর লন্ডভন্ড, ফসলের ব্যপক ক্ষতি

এম এ করিম সরাইল(ব্রাহ্মণবাড়িয়া) :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে কাল বৈশাখী ঝড়-শিলাবৃষ্টিতে বাড়ি-ঘর লন্ডভন্ড ও ফসলের ব্যপক ক্ষতি হয়েছে। সোমবার (১১ এপ্রিল) ৩ টার দিকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার উপর দিয়ে কাল বৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টি হয়।
উপজেলা অরুয়াইল, পাকশিমুল ও শাহজাদাপুর ইউনিয়নস৷হ বিভিন্ন এলাকায় সবচেয়ে বেশি ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।

FB_IMG_1649667254612

সরেজমিনে দেখা যায়, ঝড়ের আঘাতে অধিকাংশ ঝুপড়ি ঘর, টিনশেড ঘর, গাছপালা ভেঙে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্থ মানুষগুলো খোলা আকাশের নিচে জীবন যাপন করছে।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন জানান, শুক্রবার রাত ৩টায় হঠাৎ আকাশ অন্ধকার হয়ে যায়। কিছুক্ষণ পরেই প্রবল বেগে ঝড় শুরু হয়। নিমিষেই ঘরবাড়ি-দোকানপাট লন্ডভন্ড করে দেয়। এ ঘটনায় অনেক মানুষ নিজের ঘরসহ আসবাবপত্র রক্ষা করতে গিয়ে আহত হয়েছেন।

শিলা বৃষ্টিতে তেমন ক্ষতি না হলেও ঝড়ো বাতাসে পাকা ধানের গাছ হেলে পড়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানান কৃষকরা।
বাদে অরুয়াইল গ্রামের নুর মাহমুদের বাড়ির পার্শ্ববর্তী আখড়ার বিশালাকার গাছ পড়ে তিনটি ঘর ভেঙ্গে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। রাণীদিয়া গ্রামের মাদরাসার টিনশেড ঘরের ছালা উড়ে গিয়ে পাশের বাড়িতে আঘাত করেছে। দুবাজাইল ইতালি প্রবাসী আনিসুর রহমানের বিল্ডিংয়ের সিঁড়ির ছালাটি উড়িয়ে নিয়ে গেছে।
শাহজাদাপুর গ্রামের বাসিন্দা আল মামুন খান জানান, ঝড়ে স্থানীয় দৌলত খাঁ মার্কেটের দুটি টিন শেডের ঘরের ছালা উড়ে গেছে। এছাড়া শাহজাদাপুর হাওড় এলাকার ফসলী জমির ব্যপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।
ঝড়ে উপজেলা সদরের অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের আভ্যন্তরীন মাঠের একটি গাছ ভেঙ্গে বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীরের উপর পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

কাল বৈশাখী এই ঝড়ের কবলে পড়ে ১৫ জন লোক আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এ ছাড়া উপড়ে গেছে গাছপালা, ভেঙ্গে গেছে ঘরবাড়ি, ধান ও ভুট্টা গাছগুলো হেলে পড়েছে। গাছ থেকে মরিচ ঝরে পড়েছে।

আকস্মিক এই ঝড়ে ও শিলা বৃষ্টিতে প্রাণহানির কোনো ঘটনা না ঘটলেও জনগণের ব্যপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয় এলাকাবাসীর ধারণা।

এ ব্যপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আকরাম হোসেন বলেন, ঝড়ে নুয়ে পড়া পাকা ধানের তেমন ক্ষতি হবে না। তবে শিলা বৃষ্টিতে সামান্য ক্ষতি হয়েছে। আমরা ঝড়ে ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষয় ক্ষতির তালিকা তৈরী করছি। একই সাথে কৃষকরা যেন ক্ষতির মুখে না পড়েন, সেদিকে লক্ষ্য রেখে কৃষি সম্প্রসারণ এর কর্মকর্তারা মাঠ পর্যায়ের কাজ করবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

April 2024
M T W T F S S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  
আরও পড়ুন