১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

EN

নির্বাচনে পরাজিত নামধারী আওয়ামী লীগের লোকেরাই আমার বিরোদ্ধে অপপ্রচারে নেমেছেঃ ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীর

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:৫১ অপরাহ্ণ , ২৭ এপ্রিল ২০২২, বুধবার , পোষ্ট করা হয়েছে 2 years আগে

নির্বাচনে পরাজিত নামধারী আওয়ামী লীগের লোকেরাই আনার বিরোদ্ধে অপপ্রচারে নেমেছেঃ ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীর

এম এ করিম সরাইল  নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমঃ

নির্বাচনে পরাজিত নামধারী আওয়ামী লীগের লোকেরাই আমার বিরোদ্ধে অপপ্রচারে নেমেছে। আমি ষড়যন্ত্রের শিকার। বিগত ইউপি নির্বাচনে জনগণের প্রত্যক্ষভোটে আমি চুন্টা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। এতে পরাজিত শক্তি আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে ওঠে পড়ে লেগেছে। গত ২ মার্চ আমার চুন্টা ইউনিয়নের নরসিংহপুর গ্রামে একজন প্রতিবন্ধী মেয়ে ধর্ষনের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত আসামীকে গ্রেফতার করেছে। ১৬৪ ধারায় আসামী বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্ধী দিয়েছে। বর্তমানে আসামী জেল হাজতে আছে। এ ঘটনায় আমার ইউনিয়ন পরিষদে বা এলাকার কোথাও আমি কোনো শালিশ বৈঠক করিনি। অথচ নির্বাচনে পরাজিত নামধারী আওয়ামী লীগের সেই লোকেরা এই ঘটনাকে পূঁজি করে আমার বিরোদ্ধে অপপ্রচারে নেমেছে। শালিশ-বৈঠক করে অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে আমি নাকি ঐ ঘটনাটি আপোষ-নিষ্পত্তি করেছি। অথচ ধর্ষনের ঘটনায় বিচারাধীন মামলার এ বিষয়ে জনপ্রতিনিধি হিসেবে ঘটনাটি আপোষ-নিষ্পত্তি করার আমার কোনো এখতিয়ার নেই। কেবল প্রতিহিংসার বশঃ বর্তী হয়েই সেই পরাজিত মহল আমার বিরোদ্ধে ষড়যন্তমূলক অপপ্রচার করছে। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
সরাইল উপজেলার চুন্টা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ হুমায়ুন কবীর দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে উপস্থিত গণ মাধ্যম কর্মীদের এ কথা বলেন।

এ সময় উপস্থিত চুন্টা ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান, ইউপি সদস্য মোঃ শাহজাহান মিয়া, মুখলেছ মিয়া, মোঃ আলী মিয়া, মোঃ আব্দুল হাই ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য আনোয়ারা বেগম পৃথক পৃথক বক্তব্যে চেয়ারম্যানের বিরোদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, নরসিংহপুর গ্রামে প্রতিবন্ধী মেয়ে ধর্ষনের ঘটনায় ইউনিয়ন পরিষদে কোনো শালিশ বৈঠক হয়নি। ইউপি সদস্যবৃন্দ আরও বলেন, আমাদের চেয়ারম্যান মহোদয় একজন সৎ ও মহৎ মনের মানুষ। চেয়ারম্যানকে জড়িয়ে যারা অপপ্রচার চালাচ্ছেন তারা স্বার্থবাদী ও মিথ্যাবাদী। ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতেই এমন অপপ্রচার চালাচ্ছেন মহলটি।
নরসিংহপুর গ্রামের ইউপি মেম্বার মুখলেছ মিয়া বলেন, প্রতিবন্ধী মেয়ে ধর্ষনের ঘটনাটি আমার ওয়ার্ডে ঘটেছে। এ ঘটনায় আইনি পদক্ষেপ চলমান রয়েছে। এ ঘটনায় আমার জানামতে আমার ওয়ার্ডে ও ইউনিয়ন পরিষদের কোথাও শালিশ বৈঠক হয়নি।

এ ব্যপারে চুন্টা ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের মাঞ্জু মিয়া, একই গ্রামের দ্বীন ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক শাহজাহান মিয়া ও এরশাদ আলী বলেন, দীর্ঘ ৩০ বছর পর আমাদের রসুলপুর গ্রাম থেকে হুমায়ুন কবীর চ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। আমাদের জানামতে চেয়ারম্যান অত্যন্ত ভাল ও মহৎ মনের মানুষ। তারাঁ আরও বলেন, আমাদের ইউনিয়নের যেকোনো গ্রামে আমাদের উপস্থিতিতেই শালিশ বৈঠক হয়। অথচ প্রতিবন্ধী মেয়ে ধর্ষনের ঘটনায় ইউনিয়নের কোথাও কোনো শালিশ বৈঠক হয়নি। চেয়ারম্যানকে জড়িয়ে যে মিথ্যা অপপ্রচার করা হচ্ছে আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

এ ব্যপারে নরসিংহপুর গ্রামের ধর্ষিতা প্রতিবন্ধীর পরিবারের লোকজন বলেন, এ ঘটনায় শুরু থেকেই আমরা আইনের আশ্রয় নিয়েছি। যা হবার আইনের মাধ্যমেই হবে। এ ব্যপারে এলাকায় বা ইউনিয়ন পরিষদের কোথাও কোনো শালিশ বৈঠক হয়নি। অর্থ লেনদেনের তো প্রশ্নই ওঠে না। এতে চেয়ারম্যানের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। এ ঘটনায় চেয়ারম্যানকে জড়িয়ে যে কথা বলা হচ্ছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

উল্লেখ্য গত মার্চ মাসের ২ তারিখ উপজেলার চুন্টা ইউনিয়নের নুরসিংহপুর গ্রামে এক প্রতিবন্ধী মেয়ে ধর্ষনের শিকার হয়। এ ঘটনায় জড়িত একই গ্রামের আফিল উদ্দিনের পুত্র আদু মিয়াকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেন ধর্ষিতার পরিবার। এ ঘটনায় জড়িত নরসিংহপুর গ্রামের আফিল উদ্দিনের পুত্র আদু মিয়াকে গ্রেফতার করেছেন পুলিশ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

June 2024
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
আরও পড়ুন